May 21, 2024, 9:52 pm

সবজিতে অতিরিক্ত কীটনাশক ব্যবহারে মাধবদীতে বাড়ছে স্বাস্থ্য ঝুঁকি

সবজিতে অতিরিক্ত কীটনাশক ব্যবহারে মাধবদীতে বাড়ছে স্বাস্থ্য ঝুঁকি

মাধবদী (নরসিংদী) সংবাদদাতা : শীতকালীন সবজি চাষ প্রতিনিয়তই বেড়েই চলেছে নরসিংদী সহ মাধবদীতে। ফসল পরিচর্যায় ব্যস্ত সময় পার করছে কৃষকগণ। ভালো ফলনের আশায় অনেক কৃষক সবজি চাষে ব্যবহার করছে অতিরিক্ত কীটনাশক। এসব সবজি খেলে মানুষের কিডনি ও উচ্চ রক্তচাপসহ নানা রোগে আক্রান্ত হতে পারে। শাক-সবজিতে কীটনাশক ব্যবহারের ফলে বাড়ছে স্বাস্থ্য ঝুঁকির আশঙ্কা। চিকিৎসকগণ বলেন, কীটনাশকের বিষক্রিয়ায় কিডনি, ক্যান্সার ও উচ্চ রক্তচাপসহ নানারোগ হতে পারে। নরসিংদী মাধবদীর সচেতন মহল বলেন, কৃষক ও ভোক্তা পর্যায়ে সচেতনতা বাড়াতে হবে। প্রচার করতে হবে মাত্রারিক্ত কীটনাশক প্রয়োগ করা সবজি মানবদেহের জন্য মারাতœক ক্ষতিকর। শাক- সবজিতে অতিরিক্ত কীটনাশক ব্যবহার বন্ধে কার্যকরী পদক্ষেপ নেয়ার দাবিও জানান এ সচেতন মহল। মাধবদী শিল্পাঞ্চল হলেও এ অঞ্চলের এক তৃতীয়াংশ হচ্ছে কৃষি অর্থনীতির ওপর নির্ভরশীল। প্রতিবছর প্রচুর পরিমাণ সবজি উৎপাদন হয়। নরসিংদী জেলার ৬টি উপজেলায় উৎপাদিত ফল ফলাদির মধ্যে সবজিরও বেশ সুনাম রয়েছে। তবে সবজি উৎপাদনে শিবপুর, রায়পুরা, বেলাব ও মনোহরদীতে শীতকালীন সবজি চাষে ঝুঁকছে কৃষকরা। বেশি লাভের আশায় ফুল কপি, বাঁধা কপি, বেগুন, পটল, করলা, টমেটো, কাকরোল, শিমসহ সব সবজিতে কীটনাশক প্রয়োগ করা হচ্ছে। কীটনাশক প্রয়োগের পর সাধারণত কোন সবজি ৩ দিন, কোনটির ৭ দিন এবং কোনটির ২১ দিন আবার কোন সবজিতে সময় লাগে মাসেরও বেশি সময়। কীটনাশক প্রয়োগ করে নির্ধারিত সময় পর্যন্ত অপেক্ষা না করে সবজি বাজারজাত করছে অধিকাংশ কৃষক। কীটনাশক প্রয়োগের ৩-৪ দিন পরেই কৃষকরা তাদের উৎপাদিত ফসল বাজারে নিয়ে আসে। কোন কৃষক একদিন পরেই জমি থেকে সবজি তুলেন। সাধারণ মানুষ সেই সব সবজি তাজা ভেবে ক্রয় করেন। অথচ এসব শাক-সবজি খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য মারাতœক হুমকি। এতে শরীরে নানা রোগ হতে পারে। কৃষিতে অভিজ্ঞতা রয়েছে সিরাজুল ইসলাম বলেন, এ বিষয়ে কৃষকদের সচেতন করা প্রয়োজন। বিষমুক্ত সবজি চাষে আগ্রহী করার উদ্যোগ নেয়া প্রয়োজন। কৃষকগণ বলেন, সবজি চাষের আগে জমি চাষযোগ্য করার জন্য প্রথমেই কীটনাশক ব্যবহার করে তারা। ঘাস ও আগাছা ধ্বংস করার জন্য বিষ দেয়া হয় সবজির জমিতে। নরসিংদী ও মাধবদী সহ দেশের প্রতিটি বাজারেই বিষমুক্ত সবজি বিক্রি করার দাবি সাধারণ ক্রেতাদের।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2023 satkhirachitra.com
Design & Developed BY CodesHost Limited